মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা

·       কৃষি পণ্যের চাহিদা ও যোগান নিরুপণ, মজুদ ও মূল্য পরিস্থিতি বিশ্লে­ষণ পূর্বক অত্যাবশ্যকীয়    কৃষিপণ্যের

     মূল্যের আগাম প্রক্ষেপণ ও এ বিষয়ে তথ্য ব্যবস্থাপনা এবং প্রচার করা।

 

·    আধুনিক সুবিধা সম্বলিত বাজার অবকাঠামো নির্মাণ এবং কৃষিপণ্যের সরবরাহ ব্যবস্থায় সহায়তা প্রদানের

     মাধ্যমে দক্ষ বাজার ব্যবস্থা গড়ে তোলা।

 

·   কৃষক বিপণন গ্রুপ/দল গঠন এবং উৎপাদক ও বিক্রেতার সাথে ভোক্তার সংযোগ স্থাপনে সহায়তা দান।

 

·  কৃষি ব্যবসা ও কৃষি ভিত্তিক শিল্প স্থাপনের মাধ্যমে কৃষি ও কৃষিজাত পণ্যের রপ্তানী বৃদ্ধিতে সহায়তা      করা।

 

·  কৃষক ও ব্যবসায়ীদের  কৃষিপণ্যের  গ্রেডিং, সর্টিং, প্যাকেজিং, প্রক্রিয়াজাতকরণ ও সংরক্ষণ বিষয়ে      প্রশিক্ষণ প্রদান এবং ঋণ ও বিপণন সহায়তা প্রদানের মাধ্যমে কৃষিপণ্যের মূল্য সংযোজন কার্যক্রম      অব্যাহত রাখা।

 

কৃষিপণ্যের  আধুনিক সংগ্রহোত্তর প্রযুক্তির ব্যবহার ও হস্তান্তরে সহায়তা প্রদান :

           সমাপ্ত সমন্বিত মানসম্পন্ন উদ্যান উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ফসল সংগ্রহোত্তর অপচয় রোধে কৃষক, ব্যবসায়ী, প্রক্রিয়াজাতকারীগণের সমন্বয়ে ২০জন করে মোট ৬৮৬টি কৃষক বিপণন দল গঠন করে উদ্যান জাতীয় ফসল বাজারজাতকরণ, প্রক্রিয়াজাতকরণ ও সংরক্ষণের উপর প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে।

          শাক-সব্জি ও ফলমূলের কর্তনোত্তর ক্ষতি কমিয়ে গৃহ পর্যায়ে প্রক্রিয়াজাতকরণ ও বাজারজাতকরণ এবং সংরক্ষণ ব্যবস্থা উন্নয়নের মাধ্যমে মূল্য সংযোজন করে আয় বৃদ্ধি ও পুষ্টি নিশ্চিতকরণসহ কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে দারিদ্র হ্রাসের উদ্যোগ নেয়া  হয়েছে।

গৃহ পর্যায়ে আলু সংরক্ষণাগার ও ফুল বিপণনে সহায়তা প্রদান :

কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের মুজিবনগর সমন্বিত কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের আর্থিক সহায়তায় কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলাও ঝিনাইদহ জেলার সদর উপজেলায় মোট ২টিগৃহ পর্যায়ে আলু সংরক্ষণাগার নির্মাণ করা হয়েছে।

ঝিনাইদহ জেলার সদর উপজেলায় নির্মিত এ্যাসেম্বল সেন্টারে কৃষকের উৎপাদিত ফুল বিপণনে সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।

ছবি


সংযুক্তি



Share with :

Facebook Twitter